Home
Reign of Pure Immorality in Myanmar: Does Rohnigya Life Matter? PDF Print E-mail
Written by Dr Firoz Mahboob Kamal   
Sunday, 03 December 2017 23:29

The immorality & the calamities

Commission of a crime never owes to any physical disability of the perpetrator. It is an evil expression of his or her wicked immorality. In presence of extreme immorality, such crime turns terribly barbaric and genocidal. The genocidal ethnic cleansing of the Rohingya Muslims in Myanmar is indeed a sure diagnostic marker of such moral ill-health. The man-eating animals do not possess any moral compass; hence, killing humans isn’t considered a crime in the animal kingdom. So, no animal gets condemned for that. The same norm of animal kingdom overwhelms a country’s politics, religion, culture and warfare if the people with moral deprivation become ruler, religious leader or commander of the Army. Then, arson, rape, torture, murder and forceful eviction become the parts of politics, religion and culture. That has exactly happened in Myanmar. As a result, in last 3 months, more than six hundred thousand Rohingya Muslims have been evicted, more than three thousands have been killed, hundreds of Rohingya women are raped and more than half of the Muslim villages are torched down to ashes.

Read more...
 
The Rohingya Genocide: Why Independent Arakan So Crucial? PDF Print E-mail
Written by Dr Firoz Mahboob Kamal   
Thursday, 16 November 2017 09:25

The liberty in genocide

The genocidal cleansing of the Rohingya Muslims -the stipulated key objective of the Myanmar government, has received a huge success. No other Army in the world could cause such a quick and massive eviction of the centuries-old settled people on earth. The Army could cleanse more than six hundred thousand people from their own homes in less than three weeks. They could also evict more than another four hundred thousand people in previous years. The Army have burnt about half of the Muslim villages in Arakan and made them completely empty for government take-over. The government needs such empty lands for building two deep sea ports: one for China and another for India. India needs that port to connect its eastern seven provinces. China needs that port to get quick access to outside markets from its southern part. This is why, both China and India have huge vested interest to support the ongoing ethnic cleansing in Arakan. Both China and India consider such cleansing of the Muslims population quite essential for safe passage for their trucks, oil pipelines and cargo ships. In the beautiful sea shore of Arakan, the government also need huge area of Muslim-free land for building Army barracks, government offices, residential blocks for the Burmese Buddhists and special economic zones for the foreign investors. Now, the ultra-nationalist ruling elite, the racist Army and the Muslim bashing Buddhist monks have enough reasons to celebrate such a spectacular success in ethnic cleansing.

 

Last Updated on Thursday, 16 November 2017 11:54
Read more...
 
মায়ানমারে পরিকল্পিত রোহিঙ্গা নির্মূল PDF Print E-mail
Written by ফিরোজ মাহবুব কামাল   
Tuesday, 03 October 2017 18:55

নির্মূল-প্রক্রিয়া পৌঁছেছে চুড়ান্ত পর্যায়ে

রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে মায়ানমার সরকারের জিনোসাইড বা গণহত্যাটি কোন সাম্প্রতিক নৃশংসতা নয়। সেটি চলছে তিন দশকের বেশী কাল ধরে, এবং সুপরিকল্পিত এক ব্লু-প্রিন্টের অংশ রূপে। সম্প্রতি সেটি পৌঁছেছে তার চুড়ান্ত পর্যায়ে। বিশ্বের  শক্তিবর্গ এ ঘৃন্যতম জিনোসাইডকে বন্ধ করা দুরে থাক, নিন্দা করতেও ব্যর্থ হয়েছে। সেটিই প্রকাণ্ড ভাবে ধরা পড়েছে গত ২৮ই সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে। সে বৈঠকটি কোনরূপ সিদ্ধান্ত ও মায়ানমারের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব ছাড়াই শেষ হয়েছে। উক্ত বৈঠকে রোহিঙ্গাদের উপর হামলা ও তাদের নির্মূলের জন্য রাশিয়ার প্রতিনিধি মায়ানমারের সেনা চৌকির উপর রোহিঙ্গা আরাকান সালভেশন আর্মির হামলাকে দায়ী করেছে; এবং সমর্থন করেছে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে পরিচালিত মায়ানমার সরকারের সকল নৃশংসতাকে। সমর্থন জানিয়েছে চীনও। এহেন নব্য ফাসিস্টদের সমর্থন করছে ভারত ও জাপানের মত দেশগুলিও  -গণতন্ত্র নিয়ে যাদের প্রচণ্ড গর্ব। বিশ্বের প্রধান প্রধান শক্তিগুলি যে কতটা হৃদয়হীন, নীতিহীন ও নৈতীকতা শূণ্য -এ হলো তারই প্রমাণ। এরূপ নৈতীক শূণ্যতার কারণেই অতীতে এরা দু’টি বিশ্বযুদ্ধ, ভয়ানক গণহত্যা ও বর্ণবাদী নির্মূল উপহার দিয়েছে।

 

 

Last Updated on Tuesday, 03 October 2017 21:22
Read more...
 
The Rohingya Muslims:The Victims of Pure Genocide PDF Print E-mail
Written by Dr. Firoz Mahboob Kamal   
Saturday, 04 November 2017 18:19

The pure genocide

“Genocide” is the cruellest and the most violent form of crime against humanity. It targets people for arson, rape, torture and total annihilation purely based on race, religion, and language. Therefore, no one needs to do any wrong for becoming the definitive target of genocide. His or her faith, race, language or religion is enough to invite the worst type of murderous thugs, robbers and rapist at the doorstep. The case of Rohigya Muslims is the perfect example of that. It is indeed a violent expression of the very fast growing metastasising moral cancer. Now it appears that the cancer has deeply affected not only the civil and military institutions of Myanmar, but also the country’s Buddhist monks, the political elites, the intelligentsia, the media and a large section of the common people. Because of such a tsunamic scale of the moral disease, on 30th October 2017, tens of thousands of Burmese people assembled on the streets of Yangon –the former capital of Myanmar, to show full support for the Army. It was indeed a huge homage to the Army for the execution of its policy of killing, raping and ethnic cleansing of the Rohingya Muslims.

Read more...
 
নির্মূলের মুখে রোহিঙ্গা মুসলিমঃ পরিত্রাণ কীরূপে? PDF Print E-mail
Written by ফিরোজ মাহবুব কামাল   
Saturday, 23 September 2017 15:53

মুসলিম নির্মূল-প্রকল্প কেন আরাকানে?

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ আরাকান (বর্তমান নাম রাখাইন) থেকে রোহিঙ্গা মুসলিমদের নির্মূলের কাজটি এখন চুড়ান্ত পর্যায়ে। নির্মূল প্রক্রিয়ার শুরু আজ নয়, বহু পূর্ব থেকে। বার বার তাতে নতুন মাত্রা যোগ করা হয়েছে। সেটি যেমন ১৯৭৮, ১৯৮৪ ও ২০১২ সালে, তেমনি এ বছর ২০১৭। তবে এবারে সেটি সবচেয়ে তীব্রমাত্রা পেয়েছে। জাতিসংঘের হিসাব মতে গত মাত্র ৩ সপ্তাহে ৪ লাখ ২০ হাজারের বেশী মুসিলমকে তারা দেশ ত্যাগে বাধ্য করেছে। ইতিমধ্যেই অর্ধেকের চেয়ে বেশী মুসলিম গ্রামকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে সম্পূর্ণ নিশ্চিহ্ন করা হয়েছে। রোহিঙ্গা মুসলিমদের নির্মূলই যে মায়ানমার সরকারের রাষ্ট্রীয় নীতি -সেটি এখন বিশ্ববাসীর কাছেও সুস্পষ্ট ভাবে ধরা পড়েছে। জাতিসংঘ মানবাধিকার সংস্থার প্রধান বলেছেন,  রোহিঙ্গা মুসলিমদের সাথে যা ঘটছে সেটি বর্ণগত নির্মূলের একটি “টেক্সবুক উদাহরণ”। যাদের আজ বহিষ্কার করা হচ্ছে তাদের নিজেদের জন্ম যেমন আরাকানে, তেমনি শত শত বছর ধরে সেখানে বসবাস করে আসছে তাদের পূর্ব পুরুষগণ। এরূপ স্থায়ী বাসিন্দাদের নির্মূলকরণের ন্যায় বর্বর কর্মকে জায়েজ করতে ১৯৮২ সালে আইন করে রোহিঙ্গা মুসলিমদের থেকে নাগরিকত্ব কেড়ে নেয়া হয়েছে।

Last Updated on Saturday, 23 September 2017 21:04
Read more...
 
<< Start < Prev 1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 Next > End >>

Page 1 of 42
Dr Firoz Mahboob Kamal, Powered by Joomla!; Joomla templates by SG web hosting
Copyright © 2017 Dr Firoz Mahboob Kamal. All Rights Reserved.
Joomla! is Free Software released under the GNU/GPL License.